Breaking News
Home / বাংলাদেশ / সরকার / চাষীদেরও ট্যাক্স দিতে হবে – এ কোন বাংলাদেশে বাস করছি!!!!!

চাষীদেরও ট্যাক্স দিতে হবে – এ কোন বাংলাদেশে বাস করছি!!!!!

মালে কই কি???? আবুল মাল আব্দুল মুহিত কি অর্থমন্ত্রী নাকি দেশের মেরুদন্ড ভাঙ্গার মন্ত্রী?
এই লোকটা সরকারি ক্ষমতায় বসে একের পর এক আমজনতা বিরোধী কাজ করে যাচ্ছে। এটা রাষ্ট্র বিরোধী নয়? যেখানে জনগণই যদি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সকল ক্ষমতার উৎস হয়ে থেকে তাহলে উৎসের বিপক্ষে কাজ করা কি রাষ্ট্রের বিপক্ষে কাজ করা নয়? আর তা যদি হয়ে থাকে তবে আবুল মাল আব্দুল মুহিত বর্তমান সর্কারের অর্থমন্ত্রীর চেয়ারে বসে রাষ্ট্রদ্রোহী কাজ করছেন। জনগনের রাষ্ট্রে বসে সেই জনগনকেই বিপাকে ফেলছেন।
তিনি বলছেন- “এখন সময় হয়েছে আমাদের চাষী কিষাণরা, তাদেরও এখন ট্যাক্স দিতে হবে। কারণ এখন বেশ বড় কৃষক অনেক হয়ে গেছে। ” গতকাল শনিবার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট সম্মেলন কক্ষে ‘জাতীয় বাজেট ২০১৬-১৭ পরবর্তী পর্যায় আলোচনা: প্রেক্ষিত বাংলাদেশ’ শিরোনামে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা জানান। বেটা একবারও চিন্তা করল নে যে এই কৃষকরা নিজের উৎপাদিত ফসলের ন্যায্য মূল্যই পায়না। লোক্সান গুন্তে হয় প্রতিবার ফসল উৎপাদনে। সে ট্যাক্স দিবে কি করে। এই বিষয় তার চিন্তায় আসে কি করে!!!
তিনি আরো বলেন, “এলাকা বেশি হয় নাই, কিন্তু এলাকার প্রোডাক্টিভিটি এতো বেড়েছে যে তাদের ওপর করারোপ করা যায়। যদিও এখন পর্যন্ত তারা কর অব্যাহতি পায়। তবে তাদের আয়ের ওপর করারোপ করতে হবে, পুরো উৎপাদনের ওপর নয়। ”
মুহিত বলেন, “আমি আখ চাষকে নিরুৎসাহিত করছি। দেশ থেকে ধীরে ধীরে আখ চাষ উঠিয়ে দেওয়া হবে।” এই অবস্থানের পক্ষে যুক্তি দিয়ে তিনি আরো বলেন, “আখ চাষে সময় লাগে প্রায় নয় মাস এবং এ সময় কারখানাগুলো বন্ধ থাকে। চিনি কলগুলোর কারণে দেশের কয়েক শ কোটি টাকার ক্ষতি হচ্ছে। এছাড়া অনেক জমিও নষ্ট হচ্ছে। ” – আসলে মাল একটা পাগল।
বাংলাদেশ কৃষি অর্থনীতিবিদ সমিতি আয়োজিত এই সভায় অন্যদের মধ্যে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম ও অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক বক্তব্য রাখেন।

About বার্তা সম্পাদক

মন্তব্য করুন