Breaking News
Home / শিল্প-সাহিত্য / চাকরির ইস্তফাপত্রে কী লিখেছিলেন তসলিমা নাসরিন?

চাকরির ইস্তফাপত্রে কী লিখেছিলেন তসলিমা নাসরিন?


জানাও ডেস্কঃ তসলিমা নাসরিনকে সবাই লেখিকা হিসেবেই চেনেন। কিন্তু পেশাগত জীবনে তিনি একজন চিকিৎসক। ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মেডিকেল কর্মকর্তার (ইনডোর) দায়িত্ব পালন করেছেন। ১৯৯৩ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি তিনি চাকরি থেকে ইস্তফা নেন।
কেন তিনি পদত্যাগ করেছিলেন? কী ছিল তার ওই পদত্যাগপত্রে? প্রায় দুই যুগ আগের ঘটনা হলেও এ নিয়ে সম্প্রতি মুখ খুলেছেন তসলিমা। গতকাল বুধবার বিকাল ৩টা ৪৯ মিনিটে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে তিনি কারণ উল্লেখ করে পদত্যাগপত্রটি প্রকাশ করেন।
সেখানে তিনি লেখেন, ‘১৯৯৩ সাল। সরকার যখন জানালো এখন থেকে আমি যা লিখবো তা তাদের দেখাতে হবে, তারা অনুমতি দিলেই তবে পত্র পত্রিকায় ছাপাতে পারবো, তখন মেনে নিইনি এই নিয়ম। তারা এক রকম বলেই দিয়েছিল সরকারি হাসপাতালের ডাক্তার হয়ে অন্য কোথাও নয়, শুধু মেডিকেল জার্নালেই লেখার স্বাধীনতা আছে আমার। সেদিনই সিদ্ধান্ত নিই সরকারি চাকরিতে ইস্তফা দেব। মানুষের বাক স্বাধীনতা লঙ্ঘন করার বিরুদ্ধে অনেককাল লড়ছি। ইস্তফাটাও ছিল আমার বড় একটি প্রতিবাদ। ইস্তফা দেওয়ার আগে একবারও ভাবিনি কী খাবো, কী করে চলবো। প্রতিবাদিরা হয়তো বৈষয়িক কমই হয়। ইমোশানাল তো হয়ই। ইস্তফার কপিটা আজ পেলাম।’
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর দেওয়া ওই ইস্তফাপত্রে লেখা ছিল, ‘আমি ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের একজন মেডিকেল অফিসার (ইনডোর)। আমি স্বেচ্ছায়, সজ্ঞানে, ব্যাক্তিগত কারণে সরকারি চাকরি থেকে পদত্যাগ করতে চাই।’

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন