Breaking News
Home / খেলাধুলা / ২২২ রানে অলআউট শ্রীলঙ্কা এবং ব্যটিং এ নেমেই বিপর্যয়ে বাংলাদেশ

২২২ রানে অলআউট শ্রীলঙ্কা এবং ব্যটিং এ নেমেই বিপর্যয়ে বাংলাদেশ


চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী সেডিয়ামে সিরিজের প্রথম টেস্টে দুই দলের ব্যাটসম্যানরা রান রান উৎসব করেছেন। আর সেখানে মিরপুরে প্রথম দিনে সংগ্রাম করতে হয়েছে শ্রীলঙ্কার ব্যাটসম্যানদের। বিশেষ করে আব্দুর রাজ্জাক ও তাইজুল ইসলামের ঘূর্ণি জাদুতে শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংস গুটিয়ে গেছে মাত্র ২২২ রানে।
চার বছর পর দলে ফিরে আব্দুর রাজ্জাক তুলে নিয়েছেন ৪ উইকেট। আরেক বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামও কম গেলেন না। তিনি পেলেন ৪টি উইকেট। আর ২টি উইকেট পেয়েছেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান।
মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের উইকেটে স্পিন ধরবে এ কথা আগেই জানাই ছিল। কিন্তু বল প্রথম সেশন থেকেই যে সাপের মতো ফণা পাকিয়ে ছোবল দিয়ে উঠবে, তা জানত কে! অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বোধহয় জানতেন। টস হেরে ফিল্ডিংয়ে নেমে দুই প্রান্ত থেকে দুই স্পিনারকে দিয়ে বোলিং শুরু করান তিনি।
এক প্রান্তে মিরাজ অন্যপ্রান্তে রাজ্জাক। টেস্ট ক্রিকেটের ১৪০ বছরের ইতিহাসে এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো কোনও ইনিংসের প্রথম দুই ওভার করলেন দুই স্পিনার। প্রথম এ নজির দেখা গিয়েছে ১৯৬৪ কানপুরে ভারত-ইংল্যান্ড টেস্টে।
আর তাইতো শ্রীলঙ্কার ইনিংসে ষষ্ঠ ওভারে প্রথম বলে দিমুথ করুনারতেœকে (৩) তুলে নিয়ে রঙিন প্রত্যাবর্তনের শুরু করেন রাজ্জাক। এরপর নিজের দ্বিতীয় স্পেলে পৌঁছে গিয়েছিলেন হ্যাটট্রিকের খুব কাছে!
করুনারতেœকে (৩) স্টাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলেন রাজ্জাক। এরপর ২৮তম ওভারে দ্বিতীয় স্পেলে ফিরেই প্রথম বলে মিড অফে দানুষ্কা গুনাতিলকাকে পরিণত করেন মুশফিককের ক্যাচে। তার পরের বলটি ছিল যে কোনো বাঁহাতি স্পিনারের স্বপ্নের ডেলিভারি।
মাঝ স্টাম্প বরাবর নিখুঁত লেংথের ডেলিভারিটি খানিকটা বাঁক খেয়ে সাপের ছোবল মারার মতো আঘাত হেনেছে স্টাম্পে। লঙ্কান অধিনায়ক দিনেশ চান্ডিমাল সোজা ব্যাটে খেলেও নিজেকে রক্ষা করতে পারেননি।
রাজ্জাক হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগানোর আগে ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে (১৯) ফেরান তাইজুল ইসলাম। ৪ উইকেটে ১০৫ রান নিয়ে মধ্যাহৃ বিরতিতে যায় শ্রীলঙ্কা। দ্বিতীয় সেশনের শুরুতেও এ দুই স্পিনারের ছোবল থেকে রক্ষা পায়নি লঙ্কানরা। একপ্রান্ত আগলে রাখা কুশল মেন্ডিসকে (৬৮) দ্বিতীয় সেশনের দ্বিতীয় বলেই ফেরান রাজ্জাক। এবারও তার ডেলিভারি নিখুঁত লেংথ থেকে বাঁক নিয়ে আঘাত হেনেছে স্টাম্পে।
পরের ওভারে নিরোশান ডিকভেলাকেও (১) ফিরিয়ে শ্রীলঙ্কার দুই শ-র নিচে গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কা বাড়িয়ে তোলেন তাইজুল। শ্রীলঙ্কার স্কোর তখন ৬ উইকেটে ১১০। এখান থেকে সপ্তম উইকেটে পেরেরা–রোশন সিলভার ৫২ রানের জুটিতে কিছুটা ঘুরে দাঁড়ায় শ্রীলঙ্কা।
পরের উইকেটে আকিলা ধনঞ্জয়ার সঙ্গে ৪৩ রানের জুটি গড়ে দলকে দুই শ–র ওপাশে নিয়ে যান রোশন সিলভা (৫৬)। ৬৩ রানে ৪ উইকেট নেন রাজ্জাক। চার বছর পর টেস্টে ফিরেই এ সংস্করণে এক ইনিংসে নিজের সেরা বোলিং ফিগার তুলে নিলেন তিনি।

এ দিকে বাংলাদেশ তাদের প্রথম ইনিংসে নেমেই ব্যটিং বিপর্যয়ে পড়ে। প্রথম সারির তিন ব্যাটসম্যানকে ( তামি, মমিনুল, মুশফিক) হারিয়ে বিপদে পড়ে বাংলাদেশ। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশ তিন উইকেটে ২৭ রান করে। ক্রিজে আছে ইমরুল কায়েস এবং লিটন দাস।

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন