Breaking News
Home / বাংলাদেশ / পাকিস্তানের কাছে পাওনা ৩৫ হাজার কোটি টাকা এখনও ফেরত পায়নি বাংলাদে

পাকিস্তানের কাছে পাওনা ৩৫ হাজার কোটি টাকা এখনও ফেরত পায়নি বাংলাদে

স্বাধীনতার ৪৭ বছর পার হলেও পাকিস্তানের কাছে পাওনা অন্তত ৪শ ৩২ কোটি ডলার (প্রায় ৩৫ হাজার কোটি টাকা) ফেরত পায়নি বাংলাদেশ। অথচ ১৯৭৮ সালে ঋণের দায়ভার নেয় বাংলাদেশ। সম্পদ বণ্টন নিয়ে পাকিস্তান টালবাহানা এবং সময়ক্ষেপণ নীতিতে চলছে বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা। তাই প্রাপ্য বুঝে নিতে বাংলাদেশকে আন্তর্জাতিক অঙ্গণে তৎপরতা চালানোর পরামর্শ কূটনীতিকদের।

সাতচল্লিশে দেশ ভাগ। ভারত ও পাকিস্তান রাষ্ট্রের গোড়াপত্তন। চব্বিশ বছর পূর্ব পাকিস্তানকে অর্থনৈতিকভাবে শোষণ করে পশ্চিম পাকিস্তান। শৃঙ্খল ভেঙে একাত্তরে জন্ম নেয় বাংলাদেশ।

ভিয়েনা কনভেনশন অনুযায়ী, উত্তরাধিকার রাষ্ট্র হিসেবে পাকিস্তানের কাছে সঞ্চিত বৈদেশিক মুদ্রা, পূর্ব পাকিস্তানের নামে বরাদ্দ বৈদেশিক ঋণ ও অনুদান এবং স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি পাওয়ার কথা বাংলাদেশের।
আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী যুদ্ধের ক্ষয়ক্ষতির অর্থ পায় বাংলাদেশ। পরিকল্পনা কমিশনের হিসেবে এসব খাতে পাকিস্তানের কাছে পাওনা চারশো বত্রিশ কোটি ডলার বা প্রায় পয়ত্রিশ হাজার কোটি টাকা; জানান বাংলাদেশের প্রথম অর্থ সচিব মতিউল ইসলাম।

মুক্তিযুদ্ধে অবকাঠামোগত ক্ষতির পরিমাণ হিসাব করা হলেও এখনো ত্রিশ লাখ শহীদের ক্ষতিপূরণ নিরূপণ করেনি বাংলাদেশ। এই হিসাব বের করে অন্তর্ভূক্ত করার পরামর্শ বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন আহমেদের।

১৯৭৪ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে বাংলাদেশ কয়েক দফা পাওনা দাবির কথা তুললেও কৌশলে এড়িয়ে গেছে পাকিস্তান; জানান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপু মনি। সম্পদ বণ্টন সুরাহায় জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে বাংলাদেশকে তৎপর হওয়ার পরামর্শ দিলেন সাবেক রাষ্ট্রদূত ওয়ালীউর রহমান।

পাকিস্তান পাওনা মেটাতে টালবাহানা করলেও পাকিস্তান আমলে নেয়া ঋনের বিপরীতে ১৯৭৮ সালে প্রায় দেড়শ মিলিয়ন ডলারের দায় নিতে হয়েছে বাংলাদেশকে।

About nsompadok

মন্তব্য করুন