Breaking News
Home / বিনোদন / ‘আমাকে চুমু খাওয়ার চেষ্টা করেছিল’

‘আমাকে চুমু খাওয়ার চেষ্টা করেছিল’


‘গুজারিস’, ‘তনু ওয়েডস মনু’, ‘রাঞ্জনা’-তিন ছবি আর সরাসরি সহকারী অভিনেত্রী থেকে নায়িকা। ‘নীল বাট্টে সান্নাটা’ জমিয়ে অভিনয়। আর তাতেই বলিউডে নিজের জায়গা তৈরি করে ফেলেছেন স্বরা ভাস্কর। কিন্তু অভিনয়ে তুখোড় হয়েও রেহাই পাননি তিনি। বলিউডের কাস্টিং কাউচ(শরীরিক সম্পর্কের বিনিময়ে অভিনয়) নিয়ে তিনি আগেই মুখ খুলেছিলেন। সঙ্গে শেয়ার করেছিলেন তার সঙ্গে ঘটা তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা। তবে এবার মিডিয়ার বুমের সামনে বিস্ফোরক তথ্য শেয়ার করলেন নায়িকা।

২০০৯ সালে ক্যারিয়ার শুরু করেন স্বরা। কিন্তু প্রথম ছবি রিলিজ করল না। ভেঙে পড়েছিলেন স্বরা। কিন্তু নিজের ওপর বিশ্বাস হারান নি। তাইতো বছর গড়াতে না গড়াতেই তিন তিনটি ছবির অফার আসে ঝুলিতে। কিন্তু এই পথ মোটেও মসৃণ ছিল না। নানান রকমভাবে উত্যক্ত করা হত তাকে।

তিনি বলেন, ‘একজন আমার কানে চুমু খাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। পেছন থেকে সেই ব্যক্তি আমার কানে কাছে এসে বলে ‘আই লাভ ইউ’। সে এতটাই আমার কাছে এসেছিল যে আমার চুলে তার সারা মুখ ঢেকে গিয়েছিল।’

তবে এমন আচরণকে মোটেই প্রশ্রয় দেননি অভিনেত্রী। তিনি এই বিষয়ে কথা বলেন প্রযোজকের সঙ্গে। কোনও রকম আপোষ করে নয়। তিনি নিজের যোগ্যতায় বলিউডে জায়গা তৈরি করে নিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, তিনি আগেও জানিয়েছিলেন, একবার শুটিং চলাকালীন তার ঘরে ঢুকে একটি ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাবের বিনিময়ে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের দাবি করে এক ছবির নির্দেশক। তাকে জোর করে আলিঙ্গন করতে চায়, যা খুবই ভয়ঙ্কর ছিল। একটি সংবাদ মাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় আরও অনেক কথাই প্রকাশ্যে আনেন তিনি।

স্বরা জানান, একবার একটি ছবির টিমের সঙ্গে ৫৬দিনের জন্য আউটডোর শুটিংয়ে যান তিনি। সে সময় একেবারেই নতুন ছিলেন তিনি বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে। আর তাকে খুবই উত্যক্ত করে সেই ছবির পরিচালক। নৈশভোজের জন্য জোর থেকে শুরু করে তাকে নানা অজুহাতে ডেকে পাঠানো, তার পিছু করা, এমনই সব অভিযোগ স্বরা এনেছেন সেই পরিচালকের বিরুদ্ধে। যদিও তিনি কোনও নামই তুলে ধরেন নি। একদিন মদ্যপ অবস্থায় সেই পরিচালক তাকে অশ্লীল কথা বলেন, যা শুনে স্বরা ভয় পান। আর সেই ভয় থেকেই তিনি শুটিংয়ের পর রাতে মেক আপ তুলতেন আলো না জ্বালিয়ে, যাতে ওই পরিচালকের মনে হয় যে স্বরা ঘুমিয়ে পড়েছেন। আর এই যৌন হয়রানি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছিল যে স্বরা ছবির প্রযোজকের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলতে বাধ্য হন, যাতে শুটিং ফ্লোরে তাকে কোনওভাবেই একা না রাখা হয়।

প্রসঙ্গত, ‘বীরে দি ওয়েডিং’ এ একটি দৃশ্যের জেরে স্বরাকে যা নয় তাই শুনতে হচ্ছে। ছবিতে একটি দৃশ্যে হস্তমৈথুন করতে দেখা গেছে নায়িকাকে। যার কারণে বিভিন্ন খারাপ কমেন্টের স্বীকার হয়েছেন নায়িকা। যে জন্য ভরে উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ার নিউজ ফিড। স্বরার এই দৃশ্যে বহু দর্শক হতাশ হয়েছেন। এ ধরণের দৃশ্য তারা কোনও কমার্শিয়াল ছবিতে আশা করেন নি।

একজন টুইট করে বলেন, ‘আমি আমার দাদীর সঙ্গে ছবিটি দেখতে গিয়েছিলাম। স্বরার মাস্টারবেশনের দৃশ্য আসতেই আমায় ভীষণ লজ্জায় পড়ে যেতে হয়। আমার দাদী হল থেকে বেড়িয়ে বলেছিলেন তার এই ছবিটা দেখে রীতিমত ঘৃণা লেগেছে।’ এ ধরণের বিভিন্ন ট্রলের স্বরা লিখেছিলেন, ‘এইসব কমেন্টের জন্য কে কত টাকা পাচ্ছে কে জানে! এগুলো তো নির্ঘাত পেড ট্রলস।’ অভিনেত্রীর এই টুইটের পর বেশ কিছু নেটিজেন তার সমর্থনে কথা বলেছেন। সমর্থনের থেকে তবুও ট্রলিংয়ের সংখ্যাই অনেক বেশি। নায়িকা যে এতে একটুও প্রভাবিত হননি সেটা বলাই বাহুল্য।

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন