Breaking News
Home / বাংলাদেশ / প্রার্থী নির্বাচনে উপজেলা চেয়ারম্যান ও তারকাদের মনোনয়ন দিয়ে চমক দেখাবে বিএনপি।

প্রার্থী নির্বাচনে উপজেলা চেয়ারম্যান ও তারকাদের মনোনয়ন দিয়ে চমক দেখাবে বিএনপি।


আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশের অন্যতম বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) এখন সারা দেশে নতুন করে পুরোদমে রাজনৈতিক তৎপরতা শুরু করেছে।
একই সঙ্গে ৩০০টি আসনে প্রার্থী মনোনয়ন নিশ্চিত করার উদ্যোগ চলছে। নিরপেক্ষ সরকারের অধীন ছাড়া নির্বাচনে অংশ না নেয়ার হুমকি অব্যাহত রাখলেও মূলত নির্বাচনকে ঘিরে নতুন চমক দেখাতে চান দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। নানা ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়ে সামনের দিকে এগোতে চাচ্ছেন তিনি। তৃণমূল থেকে যোগ্য নেতৃত্ব গড়তে নতুন নতুন প্ল্যানও রয়েছে তার। সুদূর লন্ডনে বসে প্রতিদিন দলকে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন।
নির্বাচনের আর মাত্র কয়েক মাস বাকি থাকলেও এরই মধ্যেই নির্বাচনী প্রস্তুতি শেষ করতে চান তারেক রহমান।
দলের নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে সমন্বয় রেখে ব্যক্তিগতভাবে দলকে আরো শক্তিশালী করাসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুও হাতে নিয়েছেন তিনি। রাজনীতির মাঠে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে কাবু ও দলকে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত এবং বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে শিগগিরই মুক্ত করতে অবিরাম পরিশ্রম করছেন।
জুন মাসে তারেক রহমান দলের দুই ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিকে দায়িত্ব দিয়েছেন। বর্তমানে সারাদেশে দলের ক’জন উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস-চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র ও ইউপি চেয়ারম্যান রয়েছে তাদের নাম, জেলা, থানা ও সংসদীয় আসন এবং দলের পদবী থাকলে ইত্যাদি উল্লেখ করে ডাটাবেজ তৈরি করতে বলা হয়। এ ছাড়া ২০০৯ সালে উপজেলা পরিষদের কতজন সাবেক চেয়ারম্যান ও ভাইস-চেয়ারম্যান এবং পৌর মেয়র রয়েছেন তাদেরও তালিকা করতে বলা হয়।
জানা গেছে, দায়িত্ব পাওয়ার পর ওই দুই নেতা জুলাই মাসের মাঝামাঝি সময়ে একটি ডাটাবেজ পাঠান তারেক রহমানের কাছে। পাশাপাশি ডাক্তার, আইনজীবী, সাংবাদিক, প্রকৌশলী, কৃষিবিদ, প্রবাসী বিএনপি নেতাদের নাম, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও খেলোয়াড়দের নামও এ ডাটাবেজে স্থান পায়।
তালিকাভুক্ত ব্যক্তিদের নাম তারেক রহমান পাওয়ার পর যাচাই-বাছাই করছেন। এদের মধ্যে থেকে অনেককে আসন্ন নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার চিন্তা রয়েছে তার। সূত্র জানায়, যাদেরকে তিনি মনোনয়ন দেবেন তাদের অর্থবিত্তের পাশাপাশি তৃণমূলের রাজনীতির অভিজ্ঞতার ভাণ্ডার থাকতে হবে। দলীয় নেতাকর্মীদে সক্রিয়, রাজপথের আন্দোলনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে মোকাবিলা করা, এলাকা কেন্দ্রিক আধিপাত্য বিস্তার, দলের জনপ্রিয়তা বাড়াতে সক্ষম, হামলা-মামলায় সক্রিয় থাকবে এমন ব্যক্তিদের তারেক রহমান মনোনীত করবেন।
খসড়া তালিকার মধ্যে যেসব জনপ্রতিনিধির নাম পাওয়া গেছে, তারা হলেন, গাজীপুর-৩ আসনে গাজীপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ইজাদুল রহমান মিলন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (আশুগঞ্জ-সরাইল) আসনে মোহাম্মাদ আবু আসিক, নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে প্রয়াত কেন্দ্রীয় কমিটির ধর্মবিষয়ক সম্পাদক এ এম বদরুজ্জামান খান খসরুর ছেলে যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক অর্থবিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান সুমন, নেত্রকোনা-৩ আসনে কেন্দুয়ার উপজেলা চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দুলাল, মানিকগঞ্জ সদর আসনে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা, শেরপুর-৩ আসনে মাহমুদুল হক রুবেল, ঢাকা-১ আসনে নবাবগঞ্জের উপজেলা চেয়ারম্যান আবু আশফাক, ময়মনসিংহ-২ আসনে ফুলপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মোতাহের হোসেন, ময়মনসিংহ-৩ আসনে গৌরীপুর উপজেলা চেয়ারম্যান তৈয়মুর রহমান হিরন, নাটোর-৩ আসনে বানগাঁও উপজেলা চেয়ারম্যান মহুয়া রহমান কচি, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বাবুর স্ত্রী, যশোর-৫ আসনে যশোর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নাজমুল মুন্নি, সুনামগঞ্জ-৫ আসনে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরী, সুনামগঞ্জ-১ আসনে তাহেরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুল ইসলাম ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আনিসুল হক, বগুড়া-২ আসনে শিবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মীর শাহ আলম, মানিকগঞ্জ-২ আসনে হরিরামপুর উপজেলা চেয়ারম্যান সাইফুল হুদা চৌধুরী শাতিল।
পৌর মেয়দের মধ্যে রয়েছেন- পাবনার পৌর মেয়র কামরুল হাসান মিন্টু, কালিয়াকৈরের পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান, হবিগঞ্জের মেয়র জি কে গাউস। আইনজীবীদের তালিকায় রয়েছেন- খন্দকার মাহবুব হোসেন, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন, অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান, অ্যাডভোকেট মাসুদ তালুকদার, ব্যারিস্টার নওশাদ জমির, ব্যারিস্টার মীর হেলাল, ব্যারিস্টার শাকিলা ফারজানা, ব্যারিস্টার রুমন ফারজানা, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম সজন, ব্যারিস্টার তাসনিয়া প্রধান, অ্যাডভোকেট সিমকী রহমান, ড. খন্দকার মারুফ হোসেন ও ব্যারিস্টার হায়দার আলী।
চিকিৎসকের মধ্যে রয়েছেন- ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, ড্যাবের প্রেসিডেন্ট আব্দুল আজিজ, ডাক্তার ফরহাদ হালিম ডোনার, ডাক্তার মাযহারুল ইসলাম, ডাক্তার দোলন, ডাক্তার ফাওয়াজ শুভ, রফিকুল ইসলাম বাচ্চু, ডাক্তার লিটন, ডাক্তার মোহাম্মাদ ফিরোজ আহসান ও রফিকুল ইসলাম।ব্যবসায়ীদের তালিকা রয়েছেন- আব্দুল আউয়াল মিন্টু, মাহমুদ হাসান বাবু, এসএম ফজলুল হক, তাবিথ আউয়াল, শফিউজ্জামান খোকন ও তরুণ ছাত্রনেতা বাহাউদ্দিন সাদী।
প্রকৌশলীদের মধ্যে রয়েছেন- মাহমুদুর রহমান, মুনসিফ আলী, প্রকৌশলী খালেদ মাহবুবর, প্রকৌশলী শ্যামল, প্রকৌশলী মোস্তফা-ই জামান। কৃষিবিদের তালিকা নাম রয়েছে- সামছুল আলম তোফা, কৃষিবিদ হাসান জাফরি তুহিন, কৃষিবিদ আব্দুল্লাহ ফারুক, সাবেক সচিব কৃষিবিদ শামীমুর রহমান। সাংবাদিকদের তালিকায় নাম রয়েছে- শওকত মাহমুদ, এম এ হাদী, রিটা রহমান, কাদের গনী চৌধুরী, কাজী জেসমিন, গাউছুল আযম বিপু।
সাংস্কৃতিক ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছে- গাজী মাযহারুল আনোয়ার, গীতিকার মনিরুজ্জামান মনির, নায়ক হেলাল খান, আশ্রাফুজ্জামান উজ্জ্বল, শিল্পী মনির খান, বেবি নাজনীন, আসিফ আকবর। সংখ্যালঘু সম্প্রদায় থেকে জয়ন্ত কুণ্ডু, অমলেন্দ্র দাশ অপু, দেবাশিষ রায় মদু, অ্যাডভোকেট জন গোমেজ, অর্পনা রায় চৌধুরী, নিপুন রায়, ডক্টর সুকোমল বডুয়া।
প্রসাবী বিএনপি নেতাদের মধ্যে রয়েছেন- বিএনপির আন্তর্জাতিক সহসম্পাদক ও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা হুমায়ূন কবির সিলেট-২ আসন, এম এ মুকিত হবিগঞ্জ-২, লন্ডন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কয়সর আহমেদ, মহিদুর রহমান, মালয়েশিয়া বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন, মালয়েশিয়া বিএনপির সহসভাপতি মাহবুব আলম শাহ, মালয়েশিয়া বিএনপির নেতা প্রকৌশলী বাদুলুর রহমান, বেলজিয়াম বিএনপির নেতা রুহুল আমিন, মামুন বিন আব্দুল মান্নান, শাহ মোজাম্মেল, আমেরিকা প্রবাসী রাজীব হাসান চৌধুরী, লন্ডন বিএনপির সভাপতি এম এম মালেক, লন্ডন প্রবাসী ডক্টর মামুনুর রহমান ও ক্রীড়াবিদদের মধ্যে আমিনুল ইসলামের নাম রয়েছে খসড়া তালিকায়।

সুত্র মানব কন্ঠ

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন