Breaking News
Home / বাংলাদেশ / ইএফটিতে আসছে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন

ইএফটিতে আসছে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন


সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন ম্যানুয়াল থেকে ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার (ইএফটি) পদ্ধতিতে আসছে। মূলত সরকারি চাকরিজীবীদের গৃহঋণ দিতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) অর্থ মন্ত্রণালয়ের বাজেট অনুবিভাগ বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগকে এ চিঠি দিয়েছে।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। ওই চিঠিতে প্রত্যেকটি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অনলাইনে বেতন বিল দাখিলের বিষয়ে প্রশিক্ষণ আয়োজনের কথাও বলা হয়েছে।

জানা গেছে, যারা ইএফটির আওতায় এসেছেন তারা রিহ্যাবের সদস্য আবাসন প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে রেডি ফ্ল্যান্ট কিনতে পারবেন। তবে ঋণ পেতে ফ্ল্যাট কেনার প্রস্তাবটি রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংক এবং বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স কর্পোরেশন বোর্ডের অনুমোদন লাগবে। গত সপ্তাহ থেকে এসব ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটে গৃহঋণের আবেদনপত্র পাওয়া যাচ্ছে। যাতে সরকারি চাকরিজীবীরা সহজে আবেদন করতে পারেন।

সরকারের নবীন কর্মীরাও যেন একটি ফ্ল্যাট বা বাড়ির মালিক হতে পারেন সেজন্য একটি নীতিমালা করার কথা জানিয়ে গত জুনে অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন, জুলাইয়ে শুরু হওয়া নতুন অর্থবছর থেকেই তা কার্যকর হবে। এরপর ৩০ জুলাই অর্থ বিভাগ থেকে ‘সরকারি কর্মচারীদের জন্য ব্যাংকিং-ব্যবস্থার মাধ্যমে গৃহ নির্মাণ ঋণ প্রদান নীতিমালা-২০১৮’ প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করা হয়।

সরকার চলতি অর্থবছরে গৃহ ঋণের জন্য পাঁচশ কোটি টাকা বরাদ্দ রেখেছে। তারা মনে করছে চলতি অর্থ বছর এর চেয়ে বেশি ঋণ দেয়া সম্ভব হবে না। কারণ কর্মচারীদের বেতন অটোমেশন না হওয়ায় পাঁচশ কোটি টাকা ঋণ দিতে যে সংখ্যক আবেদন প্রয়োজন হবে এর চেয়ে বেশি সংখ্যক আবেদনই পাওয়া যাবে না।

বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীর দফতর, কেবিনেট ডিভিশন, রাষ্ট্রপতির কার্যালয়, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং ধর্ম মন্ত্রণালয়ের চাকরিজীবীরা ইএফটি মাধ্যমে নিজস্ব উদ্যোগে অনলাইনে নিজ নিজ বেতন বিল দাখিল করতে পারছেন। কিন্তু বাকি ৩৯ মন্ত্রণালয়ে কর্মরত চাকরিজীবীদের বেতন ইএফটি আওতায় আসেনি। এ ছাড়া চারটি বিভাগীয় শহরসহ অর্থ মন্ত্রণালয়ে কর্মরত সব চাকরিজীবীরা বর্তমানে ইএফটির মাধ্যমে বেতন পাচ্ছেন।

এক সূত্র জানায়, অর্থ মন্ত্রণালয় এবং চারটি বিভাগীয় শহরে ইএফটির মাধ্যমে বেতন দেয়া পাইলট প্রকল্প শেষ করতে সময় লেগেছে প্রায় দুই বছর। সারাদেশে এ ব্যবস্থা ছড়িয়ে দিতে আরও কয়েক বছর লেগে যেতে পারে।

প্রসঙ্গত, দেশে মোট সরকারি ও আধা চাকরিজীবীর সংখ্যা প্রায় ২৪ লাখ। এরমধ্যে আপাতত ১২ লাখ চাকরিজীবী গৃহঋণ সুবিধা নিতে পারবেন।

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন