Breaking News
Home / অঞ্চলিক সংবাদ / মেঘনার চরে হাসের খামার করে সাবলম্বী

মেঘনার চরে হাসের খামার করে সাবলম্বী

আশুগঞ্জ থেকে মোঃ ফারুক মিয়াঃ
আশুগঞ্জে মেঘনার নদীর চরে ঘরে উঠেছে মৌসুমী হাসের খামার। পাশ্ববর্তী অষ্টগ্রাম, নিকলী, ইটনা ও হবিগঞ্জ এলাকা থেকে আসা লোকজন মৌসুমী খামার গড়ে তুলে এখন সাবলম্বী। মেঘনার এ চরে ছোট বড় ২০টি হাঁসের খামারে এখন ২৫ হাজারেও বেশি হাঁস পালন করা হচ্ছে। এখানকার খামারিরা প্রতিদিন ১৫-১৭ হাজার ডিম বিক্রি করছে। হ্যাচারি থেকে ৯-১১ টাকা দরে প্রতিটি ডিম বিক্রি হচ্ছে।
অষ্টগ্রামের আব্দুল্লাহপুরের খামারি কালা চাঁন মিয়া জানান, পরিবারের টানপড়োনের কারণে লেখাপড়া বেশিদুর করতে পারি নাই। কোন রকমে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়েছেন। দীর্ঘ ২২ বছর আগে বাজারে বাজারে হাঁস মুরগী বিক্রি করে কিছু টাকা পুঁজি সংগ্রহ করে একটি বাছুর কিনেন। পরে লালন পালন করে গাভী হওয়ার পরে তা বিক্রি করেদেন। আর সেই টাকা দিয়ে এক খামারীর পরামর্শে প্রথমে কিশোরগঞ্জে তাড়াইলে ৪০ হাজার টাকা পুঁজি নিয়ে ২০০ হাঁস কিনে প্রথমে নিজের এলাকায় হাঁসের খামার শুরু করেন। পরে একদিন বয়সের ৫৫০টি বাচ্চা খামারে তোলেন। পালনের পর হাঁসগুলো ডিম দিতে শুরু করেন। ডিম বিক্রি করে অনেকটা সাবলম্বী হওয়ার পর পাঁচ হাজার হাঁসের মাঝারি আকারে গড়ে তোলেন। নিজ এলাকার মাঘ মাস থেকে বৈশাখ মাস পর্যন্ত বোরো ধান আবাদের কারণে হাঁস পালন করতে না পেরে গত সাত বছর ধরে আশুগঞ্জের মেঘনা নদীর চরে গড়ে তোলেন মৌসুমী খামার। এসময় তার মতো অনেকেই এই চরে মৌসুমী খামার গড়ে তোলেন, বর্তমানে তার খামারে আড়াই হাজার হাঁস রয়েছে। প্রতিদিন এক হাজার সাত থেকে এক হাজার আটশত ডিম পাওয়া যাচ্ছে। এই ডিম হ্যাচারি থেকে পাইকারদের কাছে প্রতিদিন ৯-১১ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে। এতে করে ১৬ থেকে ১৮ হাজার টাকার ডিম প্রতিদিন বিক্রি করা হয়। প্রতিদিন ১০-১২ হাজার টাকা খরচ মিটিয়ে ৫-৬ হাজার টাকা মুনাফা করেন তিনি।

প্রতিদিন হাঁস দুই থেকে তিন হাজার পর্যন্ত ডিম দেয়। ডিম পাড়া কমে গেলে ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকায় প্রতিটি হাঁস বিক্রি করেদেন। হাঁসের খাবারের জন্য শামুক, ধান ও গম বাবদ প্রতিদিন ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা খরচ হয়। কার্তিক মাস থেকে মাঘ মাস পর্যন্ত এ অঞ্চলে হাঁস পালনের সিজন। দুই হাজার ৬০০ হাসের খাদ্যের জন্য প্রতিদিন পাঁচ বস্তা গম পাঁচমন ধান ও ২০ বস্তা শামুক দিতে হয়। এ খাদ্য বাবদ তার প্রতিদিন ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা খরচ হয়। প্রতিদিন ডিম বিক্রি করে থাকেন ১৬ থেকে ১৭ হাজার টাকা।

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন