Breaking News
Home / অঞ্চলিক সংবাদ / ভৈরবে কিশোরী গণধর্ষণ মামলায় আটক একজন

ভৈরবে কিশোরী গণধর্ষণ মামলায় আটক একজন

পূর্ণিমা হোসাইন ভৈরব প্রতিনিধিঃ
ভৈরবে ১৩ বছর বয়সী এক কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগে অপু ওরফে বাবু মিয়া (১৭) নামে একজন কে আটক করেছে র‌্যাব-১৪, সিপিসি-৩ ভৈরব ক্যাম্পের সদস্যরা। আটককৃত ধর্ষক পৌর শহরের জগন্নাথপুর এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে।
র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, কিশোরীর ধর্ষণের ঘটনার পর থেকে আসামিদের ধরতে র‌্যাব-১৪ বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালায়। বিভিন্ন সোর্সের মাধ্যমে তারা জানতে পারে অপু ওরফে বাবু মিয়া এই ধর্ষণের সাথে জড়িত আছে। এরই প্রেক্ষিতে র‌্যাব কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিউদ্দীন মোহাম্মদ যোবায়ের এবং সিনিয়র এডি চন্দন দেবনাথ এর নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে ২৭ জানুয়ারি সোমবার রাত ৩টার দিকে তাকে পৌর শহরের জগন্নাথপুর নিজ বাড়ি থেকে আটক করে।

সাংবাদিকদের প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাব কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিউদ্দীন মোহাম্মদ যোবায়ের জানায়, ধর্ষিতা কিশোরী গাজীপুরে তার খালার বাসায় থাকত। খালার সাথে কথা কাটিকাটি হলে সে তার নিজ বাড়ি সিলেটের সুনামগঞ্জে যাওয়ার উদ্দেশ্যে ঘর থেকে বের হয়ে যায়। পরে কিশোরী সিলেটের বাসে না ওঠে ভুলে ভৈরবের বাসে উঠে পরে। এই সময় বাসে এক ছেলের সাথে তার কথা হলে সেই ছেলে কিশোরীকে নিজের কথার ফাঁদে ফেলে দেয়। সে কিশোরীকে বলে ভৈরবে নেমে তাকে সিলেটের বাসে তুলে দিবে। ভৈরবে এসে বাস থেকে ভৈরব বাসস্ট্যান্ডে নামে। পরে কিশোরীকে সিলেটের বাসে না তুলে দিয়ে অটো রিকশায় যোগে পৌর শহরের জগন্নাথপুর রেলওয়ে স্টেশনের নির্জন এলাকায় নিয়ে যায়। পরে সেখানে তার অন্য বন্ধুদের সহযোগিতায় কিশোরীর মুখে চেপে ধরে পাশের জঙ্গলে নিয়ে গিয়ে পাঁচজন মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। অচিরেই বাকী ধর্ষকদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়া আসা হবে জানায় র‌্যাব।
ধর্ষিতা কিশোরী বর্তমানে কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্র গাজীপুরে সুস্থ আছে বলে তাও জানায় র‍্যাব।

উল্লেখ্য, গত ১৫ জানুয়ারি বুধবার রাতে পৌর শহরের জগন্নাথপুর (তাঁতারকান্দী) এলাকার রেল লাইনের পাশে অজ্ঞাত ৫ জন মিলে গণধর্ষণ করে ১৩ বছর বয়সী কিশোরীকে। পরে অজ্ঞাত ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে ভৈরব রেলওয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন