Breaking News
Home / অঞ্চলিক সংবাদ / ভৈরব নিউটাউনে গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতাল উদ্বোধন

ভৈরব নিউটাউনে গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতাল উদ্বোধন

ভৈরব প্রতিনিধি।।
ভৈরব পৌর এলাকার কমলপুরর নিউটাউন মোড়ে নতুন প্রতিষ্ঠিত গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতালটি উদ্বোধনের মাধ্যমে আজ বৃহস্পতিবার থেকেই শুরু হলো স্বাস্থ্য সেবার এ প্রতিষ্ঠানটির আনুষ্ঠানিক চিকিৎসা কার্যক্রম। এ উপলক্ষে এইদিন সকাল ১১টায় কমলপুর নিউটাউন স্কাইভিউ ভবনে ফিতা কেটে নতুন এ হাসপাতালটির শুভ উদ্বোধন করেন ভৈরব উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো: সায়দুল্লাহ মিয়া। উদ্বোধনের পর হাসপাতাল প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা ও দোয় মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ভৈরব উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো: সায়দুল্লাহ মিয়া। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মো: ইয়াছির মিয়া। গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতালের চেয়ারম্যান ও ভৈরব উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আল মামুনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ভৈরব উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি ও ভৈরব প্রেসকাবের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক শামসুজ্জামান বাচ্চু, ভৈরব উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু, ভৈরব চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি সভাপতি রোটারিয়ান আলহাজ্ব মো. হুমায়ুন কবির, ঢাকা স্বাস্থ্য বিভাগের সাবেক পরিচালক ডা: মোমতাজুল হক মুক্তা, কুলিয়ারচর উপজেলা আওয়ামীলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মো: গিয়াস উদ্দিন, কুলিয়ারচর উপজেলা পরিষদ সাবেক ভাইস-চেয়ারম্যান মেছবাহ উদ্দিন আহমেদ, সাদেকপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মো. তোফাজ্জল হক, ভৈরব উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন জামাল প্রমুখ। গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতালের ভাইস চেয়ারম্যান মো: ফয়জুল আলম ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক বদিউজ্জামানের সার্বিক তত্বাবধানে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন এশিয়ান টিভির ভৈরব প্রতিনিধি আলহাজ্ব সজীব আহমেদ। অনুষ্ঠানের অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতালের মেডিসিন ও গাইনী বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ নওশীন নাহিদ (তাম্মী), গ্রামীণ জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক মো: গোলাম কিবরিয়া জামান, সাদিকুর রহমান নবীণ, নূর মোহাম্মদ রবি ও অন্যান্য পরিচালকবৃন্দ, উক্ত হাসপাতালে কর্মরত ডাক্তার ও নার্সগণ সহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার লোকজন উপস্থিত ছিলেন।
আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, অন্যান্য উপজেলার তুলনায় ভৈরব উপজেলা শহরে অনেক বেশি প্রাইভেট হাসপাতাল রয়েছে। কিশোরগঞ্জসহ পার্শ্ববর্তী জেলা নরসিংদী, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার থেকে ভৈরব শহরের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হওয়ার ফলে বিভিন্ন জেলার হাজার হাজার রোগীরা ভৈরবে আসেন চিকিৎসা সেবা নিতে। বক্তারা আরো বলেন, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভৈরব থানার সামনে একটা বিশেষায়িত হাসপাতাল ( ট্রমা হাসপাতাল) নির্মাণাধীন এবং ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ৫০ শয্যা থেকে ১০০ শয্যায় উন্নীত করণ করা হয়েছে। এই গ্রামীণ জেনারেল হাসপতালটি উদ্বোধনের মাধ্যমে ভৈরবের চিকিৎসা সেবার নতুন মাত্রা যোগ হলো। চিকিৎসার মান উন্নত হলে হাসপাতালের সুনাম অক্ষুন্ন থাকবে বলে প্রত্যাশা করেন আমন্ত্রিত অতিথিরা। তারা বলেন, মানুষকে সেবা দেয়া হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের মূল দায়িত্ব, তারপর মুনাফাও করতে হবে। তবে মুনাফা যেন হয় সেবাদানের মাধ্যমে। কোন রোগী যেন হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসে ভোগান্তির শিকার না হয় সে দিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সার্বক্ষনিক পর্যবেক্ষন ও স্বচ্ছতার ভিত্তিতে কাজ করার আহবান জানান।

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন