Breaking News
Home / অঞ্চলিক সংবাদ / নারী জাগরণের অগ্রদূত অ্যাডভোকে উম্মে শবনম মোস্তারী মৌসুমী

নারী জাগরণের অগ্রদূত অ্যাডভোকে উম্মে শবনম মোস্তারী মৌসুমী

দীনইসলামঃ অ্যাডভোকেট ঊম্মে শবনম মোস্তারী মৌসুমী। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া বারের একজন নিয়মিত সদস্য। সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্ট ডিভিশনেরও সদস্য। লিগ্যাল এইড প্যানেল আইনজীবী ব্রাহ্মণবাড়িয়া। তিনি ছাত্রজীবন থেকেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ নিয়ে আত্ম মানবতা সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করে রেখেছেন।

তিনি সুযোগ পেলেই ছুটে যান অসহায় মানুষের খোঁজে।সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন। নারীদের নিয়ে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডের কারণেও বিভিন্ন মহলের প্রশংসা কুড়িয়েছেন ইতিমধ্যে। নিজ কর্মের গুণে অ্যাডভোকেট মৌসুমী
অল্প দিনেই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সকলের প্রিয় হয়ে উঠেছেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নারী বিষয়ে এজেন্ডাগুলো অনুসরণ করে সেই

এজেন্ডাগুলো ব্যক্তিগত ভাবে বাস্তবায়নে লক্ষে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছেন অ্যাডভোকেট মৌসুমী। তিনি পেশাগত কাজের পাশাপাশি ওই এজেন্ডাগুলোর বাস্তবায়নের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি নারীদের নিয়ে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।
এই লক্ষ্যে তিনি ২০১৭ইং সালে গড়ে তুলেছেন নারীদের একটি সংগঠন। জাগরনী সংঘ। জাগরণী সংঘের মাধ্যমে সমাজের অসহায় হতদরিদ্র, পিছিয়ে থাকা নারী, বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশু, সমাজের সুবিধা বঞ্চিত অসহায় নারী ও শিশুদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন। সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসেবে নিজ ব্যক্তিগত অর্থায়নে এবং আইনগত সহায়তার মাধ্যমে সবসময় কাজ করে যাচ্ছেন।

নারীদের অধিকার ও নারীদের ক্ষমতায়ণে ঘুমন্ত নারীদের জাগিয়ে তুলে আলোর পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। যার লক্ষে নিজেকে পৌছে দিতে তার নিজ উপার্জনের বেশির ভাগই অর্থ মানব সেবায় বিলিয়ে দেন।

অ্যাডভোকেট মৌসুমী শৈশব থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদের্শ নিয়ে বেড়ে উঠেছে। তার বাবা মো. গোলাম মোস্তফা তালুকদার মা রোকেয়া বেগম দুজনেই সরকারি চাকরি করেন। তার মা ছাত্র জীবন থেকে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। মা দীর্ঘ ২৭ বছর যাবৎ রেলওয়ে আওয়ামী কর্মচারী কল্যাণ পরিষদের
(চট্টগ্রাম) মহিলা সম্পাদিকার দায়িত্ব পালন করে আসছেন। বাবাও আওয়ামীলীগের একজন কর্মী। তিনি কর্মী হিসাবে সবসময় কাজ করে যাচ্ছেন। সেই সুবাদে শৈশবে থেকে আওয়ামীলীগ ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়েই বেড়ে উঠেছেন অ্যাডভোকেট মৌসুমী। তিনি ছাত্রজীবনে ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পড়েন।

অ্যাডভোকেট ঊম্মে শবনম মোস্তারী মৌসুমীর শিক্ষা জীবন:
অ্যাডভোকেট মৌসুমী ১৯৮৪ সালে চট্টগ্রাম শহরে জন্মগ্রহণ করেন। জীবনের প্রথম শিক্ষা শুরু হয় ১৯৮৮ সালে সেন্ট জেভিয়ার্স স্কুল (ইংলিশ মিডিয়ামে)। তারপর ১৯৯৪ সালে সেন্ট স্কলাস্টিকা গার্লস হাই স্কুলে (ইংলিশ মিডিয়ামে) থেকে মাধ্যমিক পাশ করেন। তিনি ১৯৯৯ সালে সেন্ট স্কলাস্টিকার স্কুল থেকে এস.এস.সি প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হয়। ২০০১ সালে চট্টগ্রাম কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হয়। এরপর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগ থেকে এল.এল.বি (অনার্স) এল.এল.এম ডিগ্রী অর্জন করেন।

অ্যাডভোকেট ঊম্মে শবনম মোস্তারী মৌসুমীর রাজনৈতিক জীবন:
অ্যাডভোকেট মৌসুমী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা কালে সক্রিয় ভাবে রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। ২০০১ সালে তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের নিবেদিত একনিষ্ঠ কর্মী ছিলেন। সেই সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে দলের পক্ষে কাজ করতে গিয়ে জামায়াত-শিবিরের বহু নির্যাতন সহ্য করতে হয়েছে তাকে। পরে তাকে এর পুরস্কার হিসেবে ছাত্রলীগের কমিটিতে পদ দিলেও তিনি নেননি। একজন সত্রিয় সদস্য হিসেবে কাজ করে গেছেন। দলের প্রতি আনুগত্য ও একনিষ্ঠ কর্মী হয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে কাজ করাই লক্ষ্য ছিল তার মূল লক্ষ্য। নারী হিসাবে নানা প্রতিকূলতা থাকা সত্তে¡ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে নিজেকে তৈরি করে আজও কর্মী জীবনে আওয়ামীলীগের সমর্থিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ থেকে ও সুপ্রিম বার এসোসিয়েশানের সাদা প্যানেলের পক্ষে কাজ করে যাছেন। বর্তমানে তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া বঙ্গবন্ধু আওয়ামীলীগের আইনজীবী পরিষদের একজন সদস্য।

অ্যাডভোকেট ঊম্মে শবনম মোস্তারী মৌসুমীর পেশাগত জীবন :
অ্যাডভোকেট মৌসুমী পেশাগত জীবন তিনি দীর্ঘ ১১ বছর আইন পেশায় নিয়োজিত আছেন। ২০০৮ সালে বার কাউন্সিল থেকে আইনজীবী হিসাবে সনদ প্রাপ্ত হয় এবং এই বছরই চট্টগ্রাম জেলা বার এসোসিয়েশন এ আাইনজীবী হিসাবে সদস্য পদ লাভ করেন। দীর্ঘদিন আইন পেশায় থেকে ২০১৫ সালে সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্ট ডিভিশনে সনদ লাভ করেন এবং সুপ্রিম বার এসোসিয়েশনের আইনজীবী হিসাবে অন্তভূক্ত হন। বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আইনজীবী সমিতিতে আইন পেশায় ও পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনেও নিয়োজিত আছেন। তিনি ২০১৫ সালে বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী পরিষদের সদস্য হয়। ২০১৬ সালে নোটারী পাবলিক হিসাবে (সমগ্র বাংলাদেশ) কাজ করার জন্য সার্টিফিকেট পান। তিনি ২০১৭ সালে চট্টগ্রাম কর আইনজীবী সমিতির সদস্য পদ লাভ করেন।

অ্যাডভোকেট ঊম্মে শবনম মোস্তারী মৌসুমীর নারীদের নিয়ে সামাজিক কর্মকান্ড :
অ্যাডভোকেট মৌসুমী বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মকান্ডের সাথে সম্পক্তৃতার কারণে বিভিন্ন মহল থেকে প্রশংসিত হ”েছন। সমাজের অসহায় মানুষ যারা টাকার অভাবে চিকিৎসা করতে পারছেন না, অথের্র অভাবে পড়াশুনা করতে পারছেন না তাদেরকে অর্থ দিয়ে সাহায্য করছেন। পাশাপাশি প্রতিবন্ধী শিশুদের বিভিন্ন সরঞ্জাম কিনে দিচ্ছেন। বিশেষ করে নারীদের জন্য আইনগত সহায়তা ও দরিদ্র মানুষদের আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করে থাকেন। এ বিষয়ে অ্যাডভোকেট ঊম্মে শবনম মোস্তারী মৌসুমী বলেন, ছোটবেলা থেকেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ নিয়ে বেড়ে উঠেছি। তিনি আরও বলেন, অসহায় মানুষের পাশে থেকে কাজ করতে আমার ভাল লাগে। আমার নিজ অর্থ ব্যয় করে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ড পরিচালনা করি। নারীদের ক্ষমতায়নে জননেত্রী ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এজেন্ডা গুলো বাস্তবায়নে আমার নিজ উদ্যোগে কাজ করে যাচ্ছি। নারীদেরকে নিয়ে তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বাষির্কী ও সরকারের সকল জাতীয় দিবসগুলো পালন করছি।

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন