বৃহস্পতিবার , এপ্রিল 2 2020
Breaking News
Home / শিক্ষা / শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা

এনামুল হক আরিফঃ দেশে করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্তের এক সপ্তাহ পরে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। বাতিল করা হয়েছে মুজিববর্ষ উপলক্ষে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সকল অনুষ্ঠানও। পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি) ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে সকল পরীক্ষাও স্থগিত করা হয়েছে। ফলে অভিভাবকদের মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসে। গতকাল সোমবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এই সিদ্ধান্ত জানিয়ে বলেন, যদিও সংক্রমণের ঘটনা অত্যন্ত কম, তবুও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দেশের সকল পর্যায়ে, সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি সব কোচিং সেন্টারও এ সময় বন্ধ থাকবে। সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন জানান, প্রাথমিক বিদ্যালয়ও আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ রাখা হবে। ৩১ মার্চের পর পরিবেশ স্বাভাবিক হলে খুলে দেব।
ঢাকা- শিক্ষার্থীদের পারতপক্ষে বাইরে বের না হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধ, সন্তান যেন একা ঘরের বাইরে বের না হয়। কারও জ্বর, সর্দি, কাশি থাকলে তা নিয়ে যেন বাইরে বের না হয়। সে যেন ঘরে থাকে।
সোমবার প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে তার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন। বৈঠক শেষে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। একই সঙ্গে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে অভিভাবকেরা নিশ্চিত করবেন যে তাদের ছেলেমেয়েরা একাকি যেন বাইরে ঘুরে না বেড়ায়। তাদের ছুটি দেওয়াই হচ্ছে সেফটির জন্য। বাইরে ঘোরাফেরা করলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। একা একা যেন বাইরে না যায়, অ’ভিভাবকদের সঙ্গে যেতে পারে।
তিনি বলেন, আরেকটা জিনিস অনুরোধ করি- মসজিদ, মাদরাসা ও পেপারের মাধ্যমে বলে দেবেন- যদি কারো জ্বর এবং সর্দি-কাশি হয় তিনি যেন কোনো পাবলিক প্লেসে না আসেন। মসজিদ বা অফিসেও না। আম’রাও অফিসে বলে দিয়েছি জ্বর এবং সর্দি-কাশি থাকলে সে অফিসে আসবে না।
এ ছাড়া বিদেশ থেকে আসা সবাইকে অবশ্যই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে বলে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কেউ যদি এই নির্দেশ অমান্য করে তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, বিদেশ ফেরতদের শনাক্ত করে তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখার ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে। এজন্য ডিসি, টিএনও, উপজেলা চেয়ারম্যান, সিভিল সার্জন, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, পৌরসভা ও সিটি করপোরেশনের মেয়রদের এ বিষয়ে খোঁজ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
সচিব আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, বিদেশ ফেরত কেউ যদি এই নির্দেশ অমান্য করে তাহলে তাদের বি’রুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে।

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন