Breaking News
Home / শিল্প-সাহিত্য / জয় হোক মানবতার – জয় হোক “ব্লাড_ফর_আশুগঞ্জ”

জয় হোক মানবতার – জয় হোক “ব্লাড_ফর_আশুগঞ্জ”


মোহাম্মদ জাহিদ মিয়াঃ
(করোনার ভয় করবোই জয়)
পৃথিবীর একমাত্র মানবতার কল্যাণকামী শ্রেষ্ঠ ধর্ম ইসলাম। পৃথিবীতে ইসলামই একমাত্র ধর্ম যেখানে মানবতার কল্যাণ সাধন করাকে খুবই গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা হয়েছে।

আর এই পৃথিবীর মধ্যে সব চাইতে বড়ও মানুষের বিবেক। আমরা অনেক মানুষ আছি। আমাদের বিবেক আছে ঘুমিয়ে। সমাজে কিছু মানুষ আছেন যারা স্বপ্ন দেখেন মানুষের কল্যাণে কাজ করার জন্য । মানুষের জন্য মানবতা আর মানবতার জন্যই মানুষ। অসহায় এবং বঞ্চিত মানুষের উপকারে নিজেকে আত্মনিবেদন করা এবং অন্যকে এতে উৎসাহিত করাও ইবাদতের অংশ ।

শত শত বছর ধরে মানুষের জীবন পাল্টে দেওয়া থেকে শুরু করে জীবনের নতুন অর্থ নির্মাণের ক্ষেত্রে এগুলোর ভূমিকা অস্বীকার করার উপায় নেই। অনেক বছর বাঁচলেই কেবল বড় মানুষ হওয়া যায় না।একটু সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলে যদি একটি প্রাণ বাঁচে; একজন মানুষ বাঁচার স্বপ্ন দেখে—তাতেই হয়তো জীবনের সার্থকতা খুঁজে পাওয়া সম্ভব।

আজ এমনি একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন নিয়ে কিছু কথা বলবো। যে সংগঠনটি মানুষকে ইতিমধ্যে আলোর পথ দেখিয়েছে। অন্ধকারের বুকে ফুটিয়ে তুলছে জোনাকির প্রদীপ।প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবকালে গাইছে মানবতার গান। একটি সংগঠন। নাম- #ব্লাড_ফর_আশুগঞ্জ। কয়েক জন কঠোর পরিশ্রমী ও উদ্যমী যুবক দুর্বার মানব সেবা এবং সামাজিক উন্নয়ন সাধনের লক্ষ্যে ২০১৮ থেকে রক্তদান ও রক্তদান নিয়ে সচেতনতা সৃষ্টি এবং ফ্রি ব্লাড ক্যাম্পেইন করা নিয়ে কাজ শুরু করে সংগঠনটি। গেল তিন বছর ধরে সংগঠনটির সদস্যরা নিজেদের উদ্যোগে অসহায় ও দুস্থ মানুষদের সহযোগিতাও করে আসছে।

বর্তমান বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের কারণে মানুষ আতঙ্কগ্রস্ত। অদৃশ্য এই ভাইরাসের ছোবলে মুহূর্তের মধ্যে বড় হচ্ছে লাশের মিছিল । শ্মশান হয়ে যাচ্ছে পৃথিবীর জনপদ । জীবিতরা একইসঙ্গে মৃত্যু ও বেঁচে থাকার উপায় উপকরণ নিয়ে অনিশ্চিত গন্তব্যের পথে।সারা পৃথিবী জুড়ে চলছে লকডাউন।দেশে দেশে চলছে সাধারণ ছুটি। বাংলাদেশও এর ব্যতিক্রম নয়।এই সময়ে সবচেয়ে বেশী বিপাকে পড়েছেন দৈনিক মজুরিতে খেটে খাওয়া মানুষেরা।সারাদেশের মতো আমাদের আশুগঞ্জেও বিপাকে পরছে নিম্ন আয়ের মানুষ।

সরকারি ত্রাণ ছাড়াও,খাদ্য সামগ্রী এবং রান্না করা খাবার প্রদান করছে আশুগঞ্জের বেশ কিছু সংগঠন। এগুলোর মধ্যে চোখের পড়ার মতো ভূমিকা রাখছে #ব্লাড_ফর_আশুগঞ্জ ’ নামের একটি সমাজসেবী সংগঠন। এই করোনা ভাইরাসের মহামারিতে এই সংগঠনটি প্রতিদিন নিরলস কাজ করে যাচ্ছে কিছু অসহায় মানুষের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার জন্য।বিশেষ ভাবে বলতে হয় বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে আশুগঞ্জ উপজেলার মানুষ লকডাউনের জন্য স্থবির হয়ে আছে, সেখানে “ব্লাড ফর আশুগঞ্জ ” ব্যক্তিগত উদ্যোগে সুবিধা বঞ্চিত মানুষের খাবার নিশ্চিত করার জন্য ফুটপাত ও রেল স্টেশন গিয়ে তাদের খাবার ও খাদ্য সামগ্রী উপহার হিসেবে দিয়ে আসছে।

রাস্তায় রাস্তায় জীবাণুনাশক স্প্রে করছে। সুবিধা বঞ্চিতদের মাস্ক উপহার দিচ্ছে। এছাড়াও
করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষা পেতে ও আতঙ্কিত না হতে সর্বসাধারণকে সচেতন করতে এবং করনীয় সম্পর্কে প্রথম থেকেই প্রচারণা চালিয়ে আসছে সংগঠনটি।টানা ১০ মার্চ থেকে আজ পর্যন্ত এওয়ার্নেস ক্যাম্পেইন পরিচালনা করে এ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এসময় বিভিন্ন স্কুল কলেজে লিফলেট বিতরণ ও শিক্ষার্থীদের সচেতনতামূলক ব্রিফিং করছে সংগঠনটি। গত ২০ মার্চ থেকে বিভিন্ন এলাকা, মহল্লায় জিবানুনাশক ছিটানো কার্যক্রম শুরু করেছে। এবং বিভিন্ন এলাকায় নিয়মিত তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে সংগঠনটি।

উল্লিখিত কাজের পাশাপাশি- #ব্লাড_ফর_আশুগঞ্জ” সংগঠনের সদস্যরা সামাজিক অনেক উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। যেমন : রাস্তা – ঘাট পরিষ্কার, মশক নিধন কার্যক্রম পরিচালনা, কোন দুর্ঘটনা ঘটলে উদ্ধার কার্যক্রমে অংশগ্রহণ এবং বিভিন্ন অনিয়মের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেয়া।

#ব্লাড_ফর_আশুগঞ্জ ”- এর উপদেষ্টা মোঃ রাহাদ হোসেন জানান, অসহায় মানুষদের সাহায্যার্থে কাজ করার লক্ষ্যে মূলত #ব্লাড_ফর_আশুগঞ্জ ” এর যাত্রা শুরু হয়। আমাদের সমাজে এমনও অনেক অসহায় ও সুবিধা বঞ্চিত মানুষ রয়েছে, যারা সমাজে অনেকের কাছেই অবহেলিত; তাদের সহযোগিতা করার জন্যই আমাদের একঝাঁক স্বেচ্ছাসেবী অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে নির্বিঘ্নে । নানান প্রতিবন্ধকতা ও আর্থিক অসংগতি থাকা সত্ত্বেও আমরা দৈনিক বঞ্চিতদের পাশে দাঁড়াতে পারছি – এটাই #ব্লাড_ফর_আশুগঞ্জ ” পরিবারের জন্য অনেক আনন্দের।

আমি বিশ্বাস করি ইসলাম যেমন সৃষ্টির সেবা- জনকল্যাণ ও মানবসমাজের উপকারের জন্য নিজের যথাসর্বস্ব বিলিয়ে দিতে উদ্বুদ্ধ করেছে ঠিক তেমনি সমাজজীবন থেকে অশান্তি ও অবজ্ঞা বিদূরিত হয়ে শান্তি প্রতিষ্ঠিত করার জন্যও জাগ্রত করেছে। ইসলাম শুধু মানুষের সেবা ও জনকল্যাণের প্রতিই উদ্বুদ্ধ করে না, বরং আল্লাহর সব সৃষ্টির প্রতি সেবাদানের ব্যাপারে বিশেষভাবে অনুপ্রাণিত করে। এমনিভাবে পবিত্র কোরআন ও হাদিসের আলোকে ইসলামের দৃষ্টিতে আর্তমানবতার সেবা ও জনকল্যাণের দিকনির্দেশনা অনুযায়ী সমাজের বিভিন্ন ধর্মাবলম্বী মানুষের মধ্যে সাহায্য-সহযোগিতার ফলে পারস্পরিক আন্তরিকতা, স্নেহ, মায়া-মমতা, শ্রদ্ধা-ভক্তি, ভালোবাসা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নিশ্চিতভাবে গড়ে উঠতে পারে।

পরিশেষে বলা যায় একটি সামাজিক সংগঠনকে সফল করতে হলে নেতাদের নেতৃত্বগুণ, দক্ষতা, ধৈর্য্য, স্বেচ্ছাসেবী মানসিকতা, সহযোগিতা- পরায়ন, দলগত সিদ্ধান্ত শ্রদ্ধাশীলতা মনোভাব, সর্বোপরি নৈতিক গুণাবলীর অধিকারী অর্জন করতে যতটুকু গুণাবলি প্রয়োজন তার সবটুকুই অর্জন করে ফেলেছে #ব্লাড_ফর_আশুগঞ্জ” নামের সংগঠনটি।

আমি সংগঠনটির প্রধান উপদেষ্টা হাসান ইমরান ভাই সহ সংগঠনটির সকল উপদেষ্টামন্ডলী এবং সদস্যবৃন্দ তাদের প্রত্যেকের দীর্ঘায়ু ও সফলতা কামনা করি।জয় হোক মানবতার। জয় হোক মানবতার সংগঠন “ব্লাড ফর আশুগঞ্জ” ।

করোনার ভয় করবোই জয়।

About বার্তা সম্পাদক

মন্তব্য করুন