Breaking News
Home / অঞ্চলিক সংবাদ / ইফতার নিয়ে মহাসড়কে “ব্লাড ফর আশুগঞ্জ”

ইফতার নিয়ে মহাসড়কে “ব্লাড ফর আশুগঞ্জ”

আশুগঞ্জ থেকে নিতাই চন্দ্রের প্রতিবেদনঃ আশুগঞ্জের সবগুলি সংঘটনের মধ্যে ‘ব্লাড ফর আশুগঞ্জ’ অন্যতম। এইবার এই ক্রান্তিকালেও তারা প্রমান করে দিল আসলেই তারা মানুষের সেবায় নিয়োজিত। কাজ করে যাচ্ছে একনিষ্ঠ ভাবে। ‘ব্লাড ফর আশুগঞ্জ’ সংগঠনের মূল কাজ মানুষকে স্বেচ্ছায় রক্ত দেয়া। রক্ত চেয়ে ফোন করলেই নিজ খরচে গিয়ে রক্ত দিয়ে আসেন সংগঠনটির সদস্যরা। স্বেচ্ছায় রক্তদানের মহৎ কাজটি গত দুই বছর ধরে করে আসছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলার সংগঠনটি।

এবার করোনাভাইরাসের সঙ্কটকালে নিজেদের মানবতার হাতকে আরও প্রসারিত করেছেন সংগঠনটির সদস্যরা। প্রতিদিন ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে দুই শতাধিক রোজাদারকে ইফতার করাচ্ছে ‘ব্লাড ফর আশুগঞ্জ’।

ইফতারের ঘণ্টাখানেক আগে থেকে সংগঠনের প্রধান সমন্বয়ক হাসান ইমরান ও সমন্বয়ক রাহাত হোসেনের নেতৃত্বে অন্যান্য সদস্যরা ইফতারের প্যাকেট নিয়ে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের আশুগঞ্জ টোলপ্লাজা এলাকায় দাঁড়িয়ে থাকেন। টোলপ্লাজায় দায়িত্বরত আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য এবং টোল দেয়ার জন্য দাঁড়ানো অ্যাম্বুলেন্সসহ জরুরি পরিষেবায় নিয়োজিত যানবাহন চালক-সহযোগীদের মাঝে বিতরণ করা হয় ইফতার।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরুর পর থেকে আশুগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে থাকা ভবঘুরে ও ছিন্নমূল মানুষদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করে আসছে ‘ব্লাড ফর আশুগঞ্জ’। এদের মধ্যে বেশ কয়েকজন ছিন্নমূল মানুষের জন্য আবাসনের ব্যবস্থাও করেছে সংগঠনটি।

এছাড়া পুরো আশুগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে ও হাটবাজারে গিয়ে কয়েক দফায় জীবাণুনাশক ছিটিয়েছেন সংগঠনের সদস্যরা। লকডাউনের মধ্যে কোনো বহিরাগত যেন আশুগঞ্জে প্রবেশ করতে না পারেন সেজন্য আশুগঞ্জ টোলপ্লাজায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গেও কাজ করছেন তারা।

এবার রোজাদারদের মাঝে ইফতার বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে সংগঠনটি। মূলত করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে চলমান লকডাউনের কারণে দোকানপাটসহ সবকিছু বন্ধ হয়ে যাওয়ায় যাদের রাস্তায় ইফতার করতে হয়; সেসব রোজাদারদের কথা ভেবেই এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। প্রথম রোজা থেকেই দুই শতাধিক রোজাদারকে নিজেদের চাঁদার টাকায় ইফতার করাচ্ছেন সংগঠনের সদস্যরা। রোজার মাসজুড়েই এই ইফতার বিতরণ কার্যক্রম চলবে।

‘ব্লাড ফর আশুগঞ্জ’ সংগঠনের প্রধান সমন্বয়ক হাসান ইমরান বলেন, করোনাভাইরাসের সঙ্কটকালে আমারা রক্তদানের মাঝেই আমাদের কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখিনি। প্রতিদিন রোজাদারদের জন্য ইফতার নিয়ে মহাসড়কে আমাদের সদস্যরা অপেক্ষায় থাকেন। লকডাউনের কারণে দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। এতে করে রাস্তায় থাকা মানুষগুলো চাইলেও রোজা রেখে ইফতার করার জন্য কিছু কিনতে পারছেন না। তাদের কথা ভেবেই আমরা ইফতার বিতরণের উদ্যোগটি নিয়েছি।

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন