Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / ধবংসের নীলা চালিয়ে যাচ্ছে সুপার সাইক্লোন “আম্ফান”

ধবংসের নীলা চালিয়ে যাচ্ছে সুপার সাইক্লোন “আম্ফান”

জানাও ডেস্কঃ বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট হারিকেনের গতিসম্পন্ন ঘূর্ণিঝড় আম্পান বাংলাদেশের সমুদ্র উপকূলের সীমানার ৩৫০ কিলোমিটারের মধ্যে চলে আসার জন্য বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর দেশের সব সমুদ্রবন্দরকে ‘মহাবিপদ সংকেত’ দেখাতে বলেছে।

খুলনার মোংলা সমুদ্রবন্দর ও পটুয়াখালীর পায়রা সমুদ্রবন্দরকে বুধবার সকাল ৬টা থেকেই ১০ নম্বর‘মহাবিপদ সংকেত’ এবং চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর ও কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে ৯ নম্বর ‘মহাবিপদ সংকেত’ দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিশেষ বুলেটিনে জানানো হয়েছে, প্রচন্ড গতিসম্পন্ন ঘূর্ণিঝড় আম্পান আজ বুধবার বিকেল থেকে সন্ধ্যার মধ্যে সুন্দরবনের কাছ দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ-বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করতে পারে। তখন এর বাতাসের শক্তি থাকতে পারে ঘণ্টায় প্রায় ১৫০ কিলোমিটার বা তার বেশি। এ সময় উপকূলীয় জেলার দ্বীপ ও চরাঞ্চল সমূহে ১০ থেকে ১৫ ফুট বা তার চেয়ে বেশি জলোচ্ছ্বাস হতে পারে।

আবহাওয়া অফিস বলেছে, আজ বুধবার সকাল ৯টায় ঘূর্ণিঝড়টি চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৫২৫ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে; কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৫১৫ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে; মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৭০ কিলোমিটার দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছিল।

এ সময় ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৮৫ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২০০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ২২০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছিল।

আবহাওয়া অফিস প্রদত্ত সতর্ক সংকেতঃ- উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর এবং অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।

উপকূলীয় জেলা নোয়াখালী, ফেনী, চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজার এবং অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ৬ নম্বর বিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন