Breaking News
Home / অঞ্চলিক সংবাদ / বাংলাদেশ এখন আলট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল ক্লাবে

বাংলাদেশ এখন আলট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল ক্লাবে

জানাও ডেস্কঃ পটুয়াখালীর পায়রা কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের দ্বিতীয় ইউনিটের পরীক্ষামূলক উৎপাদন শুরুর মধ্য দিয়ে আলট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল ক্লাবে প্রবেশ করেছে বাংলাদেশ। গত ২৫ আগস্ট বিকেল ৩টা ৪৫ মিনিট থেকে কেন্দ্রটির ৬৬০ মেগাওয়াটের দ্বিতীয় ইউনিট বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু করে। বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানিয়েছে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের বিদ্যুৎ বিভাগ।

পায়রা কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র

তারা জানায়, কেন্দ্রটিতে আমদানি করা কয়লা দিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে। যা দেশে প্রথম। এ ধরনের কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে এশিয়াতে ৭ম বাংলাদেশ। আর দক্ষিণ এশিয়ায় দ্বিতীয়। শুধু ভারতে এ ধরনের একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র রয়েছে। এ ছাড়া চীন, তাইওয়ান, জাপান ও মালয়েশিয়াতে এ প্রযুক্তির বিদ্যুৎকেন্দ্র রয়েছে। এর মধ্যে শুধু চীন ও বাংলাদেশ ঢাকনাযুক্ত কোল ইয়ার্ড ব্যবহার করছে।

পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্রের মালিকানা বাংলাদেশ- চীন উভয় দেশের সমান। এর মধ্যে বাংলাদেশের মালিকানায় রয়েছে রাষ্ট্রীয় কোম্পানি নর্থ ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি (এনডব্লিউপিজিসিএল)। আর চীনের মালিকানায় রয়েছে চায়না ন্যাশনাল মেশিনারি এক্সপোর্ট অ্যান্ড ইমপোর্ট করপোরেশন (সিএমসি)। যৌথ এই মালিকানার নাম দেয়া হয়েছে বাংলাদেশ চায়না পাওয়ার কোম্পানি (বিসিপিসিএল)।

কোম্পানিটি সেখানে মোট ১ হাজার ৩২০ মেগাওয়াটের দুটি বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করছে। যা দেশের সব থেকে বড় কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র এবং প্রতিটি কেন্দ্রে ৬৬০ মেগাওয়াটের দুটি করে ইউনিট রয়েছে। এ নিয়ে প্রথম বিদ্যুৎকেন্দ্রের দুটি ইউনিট উৎপাদনে এলো। বাকি দুটি ইউনিট আগামী বছরে উৎপাদনে আসবে বলে জানিয়েছে তারা।

পায়রা বিদ্যুৎকেন্দ্র

এ বিষয়ে এনডব্লিউপিজিসিএল এবং বিসিপিসিএলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) প্রকৌশলী এ. এম. খোরশেদুল আলম বলেন, আলট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল প্রযুক্তিতে কম কয়লা পুড়িয়ে বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদন করা যায় এবং কোনো পরিবেশ দূষণ হয় না।

দূষণ নিয়ন্ত্রণে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এ বিদ্যুৎকেন্দ্রের কোল ইয়ার্ডটি ঢাকনাযুক্ত। ফলে কেন্দ্রটি থেকে সালফার ডাই-অক্সাইড নির্গমনের হার মাত্র ৭০-৮০ মিলিগ্রাম। অন্যদিকে, দূষণ নিয়ন্ত্রণের জন্য বিশ্বব্যাংকের বেঁধে দেয়া মাত্রা ২০০ মিলিগ্রাম।

এর আগে চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারি পায়রা বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির ৬৬০ মেগাওয়াটের প্রথম ইউনিট থেকে জাতীয় গ্রিডে পরীক্ষামূলকভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়। সেই প্রেক্ষিতে গত ১৪ মে প্রথম ইউনিটের বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরুর ঘোষণা দেয় কোম্পানিটি।

About জানাও.কম

মন্তব্য করুন